শখের বসে ব্লগ-সাইট তৈরি করে থাকুন আর টাকা আয় করার জন্য ব্লগ-সাইট তৈরি করে থাকুন। আপনার সাইটে যদি অনেক ভিজিটর চান? তাহলে আপনাকে গুগলের সাহায্য নেতেই হবে। একমাত্র গুগল আপনাকে হিউজ পরিমান ভিজিটর দিতে পারে। আর গুগল থেকে যদি ভিজিটর পেতে হবে অবশ্যই আপনার সাইটের এসইও করতে হবে। আমরা যারা ব্লগিং করি, তারা বেশিরভাগই ব্লগস্পট দিয়ে ব্লগ-সাইট তৈরি করে থাকে। আজকের আমি আপনাদের কয়েকটি সহজ এসইও ট্রিকস্‌ দেখাবো যার মাধ্যমে আপনার সাইটের র‍্যাংক বাড়াতে অনেক হেল্প করবে।


* ব্লগারের টিউনের লিঙ্ক-
আপনি যখন ব্লগারে টিউন করবেন, তখন Parmalink নামে একটা অফশন পাবেন। যেখান থেকে আপনি আপনার টিউনের লিঙ্ক চেঞ্জ করতে পারবেন। সবসময় ফ্রেন্ডলি url দিয়ে টিউন শেয়ার করবেন। আর এজন্য আপনাকে অবশ্যই custom parmalink ব্যবহার করতে হবে।


এমন কোনো শব্দ ব্যবহার করুন যা keyword হিসেবে ব্যবহার হবে। আর একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন, স্প্যাম মূলক কোনো শব্দ ব্যবহার করবেননা।
* সার্চ ডেসক্রিপশন ব্যবহার করুন-

অবশ্যই সার্চ ডেসক্রিপশন ব্যবহার করবেন।


এটার ব্যবহার আপনার ব্লগকে গুগলের কাছে গুরুত্বপূর্ন করে তুলবে। আর অবশ্যই বিষয়বস্তুর সাথে মিল রেখে কোনো keyword ব্যবহার করবেন এখানে।

আর Custm Robots Tags ব্যবহার করতে ভুলবেননা।
* লেভেল ও রিলেটেড টিউন-
সবসময় চেষ্টা করবেন সঠিক লেভেলে টিউনটি পাবলিশ করতে। এটা এসইও এর ক্ষেত্রে অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। যেমন ধরুনঃ আপনি এসইও নিয়ে কোনো আর্টিকেল লিখলেন কিন্তু পাওবলিশ করলেন ব্লগস্পট নামক কোনো ক্যাটাগরিতে। এক্ষেত্রে কিওয়ার্ড মিস হয়ে যায়। আর অবশ্যই রিলেটেড টিউন রাখার চেষ্টা করবেন। আর আপনার ব্লগে যদি এই ধরনের কোনো অপশন না থাকে তাহলে আর্টিকেল এর মাঝে রিলেটেড আর্টিকেল এর লিঙ্ক দিয়ে দিতে পারন। এটাও অনেক হেল্পফুল একটা প্রক্রিয়া।
* ইমেজ ব্যবহার করুন-
ইমেজ ব্যবহার প্রথমত আপনার সাইটকে আকর্ষনীয় করে তুলবে, যার ফলে ভিজিটর ধরে রাখা অনেক বেশি সহজ হবে। তবে অবশ্যই কম সাইজের ইমেজের ব্যবহার করবেন। কারন, বেশি সাইজের ইমেজ আপনার সাইটের লোডিং স্পিড বাড়িয়ে দিবে। এর ফলে আপনার সাইট গুগলের কাছ থেক প্রাধান্য হারাবে।
* ট্যাগস্‌ এর ব্যবহার-
কয়েকধরনের ট্যাগ রয়েছে যেমনঃ টাইটেল ট্যাগ, মেটা ট্যাগ। এগুলো ব্যবহার করুন, এর ফলে আপনার সাইট গুগলের কাছে অনেক প্রাধান্য পাবে। আর সাইট ম্যাপ ব্যবহার করতে ভুলবেননা। এর ফলে গুগল সহজেই আপনার সাইটের আর্টিকেল ইনডেক্স করতে পারবে।

* মোডারেট টিউমেন্ট-  
মোডারেট টিউমেন্ট অপশন চালু রাখুন, যাতে স্প্যাম টিউমেন্টগুলো সহজেই মোডারেট করতে পারেন। স্প্যাম টিউমেন্ট সাইটের জন্য অনেক ক্ষতিকর একটা জিনিস। আর টিউমেন্টে রিপ্লাই করার সময় অবশ্যই কিওয়ার্ড রিলেটেড রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

আপনার জন্য কয়েকটি কিলার ব্লগস্পট এসইও টিপস্‌


স্মার্টফোনের প্রতিযোগিতায় মাইক্রোসফট লুমিয়ার পথ 'অনুসরণ করছে' মার্কিন প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এইচপি। চলতি বছরের ২২ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি স্পেনের বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০১৬-তে বড় পর্দার ফ্যাবলেট ফোন এলিট এক্স৩ উন্মোচন করে প্রতিষ্ঠানটি।


উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমে চালিত ৫.৯ ইঞ্চি পর্দার এই স্মার্টফোনটিতে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে এর ল্যাপটপ ফিচার। নতুন এই ফ্যাবলেটে ডকের মাধ্যমে মনিটর, মাউস এবং কিবোর্ড সংযুক্ত করে খুব সহজেই ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটারের মতোই ব্যবহার করা যাবে। এর আগে মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ এবং লুমিয়া ৯৫০ এক্সএল এ একই ধরনের ফিচার ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্যবসা বাণিজ্যবিষয়ক মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

মাইক্রোসফটের 'কন্টিনাম' সফটওয়্যারের মাধ্যমে আর ব্যবহারের উপর ভিত্তি করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইন্টারফেইস পরিবর্তন করে নেবে এলিট এক্স৩। অর্থাৎ ফ্যাবলেটের ক্ষেত্রে ফোনের ইন্টারফেইস এবং ল্যাপটপের ক্ষেত্রে কম্পিউটারের ইন্টারফেইস দেবে।

এখন প্রশ্ন উঠতেই পারে, এইচপি হঠাৎ কেন স্মার্টফোনের ব্যবসাতে আসতে চাচ্ছে? এবিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির পার্সোনাল সিস্টেম প্রেসিডেন্ট রন কাউলিন জানান, এক বছর আগেও এলিট এক্স৩-এর মতো ডিভাইস তৈরি করা সম্ভব ছিল না। এধরনের ডিভাইসের মধ্যে ভবিষ্যৎ দেখতে পান বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ফোন হিসেবে এতে ব্যবহার করা হয়েছে ২৫৬০x১৪৪০ রেজুলিউশনের ৫.৯ ইঞ্চি অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ইউএসবি টাইপ সি পোর্টের পাশাপাশি রয়েছে ডুয়াল সিম। ফোনটির সামনে ব্যাং অ্যান্ড ওলুফসেন সাউন্ড সিস্টেমের ডুয়াল স্পিকার ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও সামনে ৮ মেগাপিক্সেল এবং পেছনে ১২ মেগামিক্সেল ক্যমেরা আছে এতে। কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮২০ কোয়াড কোর প্রসেসর সঙ্গে ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল মেমরি ব্যবহার করা হয়েছে। চাইলেই মাইক্রো এসডি কার্ডস্লটের মাধ্যমে ফোনের স্টোরেজ ২০০ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

আর ফ্যবলেটটিকে ল্যাপটপের রূপ দিতে এইচপি মোবাইল এক্সটেন্ডার ডিভাইস এনেছে প্রতিষ্ঠানটি। এতে রয়েছে ১২.৫ ইঞ্চি ১০৮০পি রেজুলিউশান ডিসপ্লে। সেই সঙ্গে এই ডেস্ক ডকের বিল্ট-ইন ব্যাটারি ফ্যাবলেটটির ব্যাটারি লাইফ ২০ শতাংশ বৃদ্ধি করবে বলে দাবি করছে এইচপি।

নতুন এই ফ্যাবলেটটির মূল্য কত হবে আর ডেস্ক ডকটি আলাদাভাবে বিক্রি করা হবে কিনা সে বিষয়ে এখনই কিছু জানা যায়নি। তবে চলতি বছরের গ্রীষ্মেই ফোনটি বাজারে আসবে বলে জানানো হয়।

নতুন ফ্যাবলেট আনছে এইচপি

আমরা সবাই কম বেশি গান শুনতে খুব পছন্দ করি। তবে স্বাভাবিক সময়ের চাইতে গান বেশি কিন্তু শোনা হয়ে থাকে ব্যায়াম করার সময়েই। কেননা ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে মিউজিক বা গানের ছন্দ বেশ সাহায্য করে থাকে। কিন্তু, যেহেতু স্মার্টফোনগুলো বর্তমানে কিছুটা আকারে বড় হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে সাধারণ ব্যায়ামগুলো করার সময়ও কিন্তু মাঝে মধ্যে ঝামেলায় পড়তে হয়। ধরুন, আপনি সকালে উঠে জগিং করছেন। সেক্ষেত্রে বড় আকারের একটি মোবাইল সাথে রেখে জগিং করাটা খুব একটা স্বস্তিকর অবশ্যই নয়। পকেট থেকে পড়ে যেতে পারে অথবা ধরুন ট্র্যাক-স্যুট বা ট্রাউজারে পকেটও না থাকতে পারে!
একইভাবে সাইক্লিং এবং অন্যান্য ব্যায়াম যেগুলোতে মুভমেন্টটাই মুখ্য সেখানে স্মার্টফোন ব্যবহার করাটা ঝামেলারই। তাই, কয়কজন প্রযুক্তিপ্রেমী এবং অবশ্যই একই সাথে সঙ্গীতপ্রেমী মিলে তৈরি করেছেন আজকের এই Maighty Audio নামের ডিভাইসটি!


Mighty Audio খুবই ছোট আকারের ডিভাইস এবং এর সবচাইতে মজার বিষয় হচ্ছে একে আপনি খুব সহজ ভাবে পরিচয় করিয়ে দিতে Spotify প্লেয়ারও বলতে পারেন! ভাবছেন, কীভাবে সম্ভব? 




ছোট্ট এই ডিভাইসটিকে সহজেই আপনি আপনার স্মার্টফোনের সাথে ব্লুটুথ প্রযুক্তির মাধ্যমে পেয়ার করতে পারবেন। এই ডিভাইসটির জন্য স্মার্টফোনের একটি অ্যাপও রয়েছে যার মাধ্যমে ডিভাইসটি পেয়ার করার পর আপনি আপনার স্মার্টফোন থেকেই এই ডিভাইসটিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। এই ডিভাইসটিতে আপনি আপনার স্পটিফাই এর অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে আপনার পছন্দের গানগুলো মাইটি মিউজিক ডিভাইসটির সাথে সিনক্রোনাইজ করতে পারবেন এবং যখন সিনক্রোনাইজেশন প্রক্রিয়া শেষ হবে তখন আর আপনাকে গান শোনার জন্য আপনার স্মার্টফোনটি ব্যবহার করতে হবেনা কেননা আপনার স্পটিফাই-এর সকল মিউজিক আপনি ছোট্ট এই ডিভাইসটিতেই সিংক করে নিয়েছেন। আর ডিভাইসটি আঁকারে ছোট হওয়ায় এটি বহন করা একদমই সহজ বলা চলে! বলতে গেলে আপনি বুঝতেও পারবেন না যে একটি বাড়টি ডিভাইস আপনি আপনার সাথে বহন করছেন! চমৎকার, নয় কি?  





অনেকেই হয়তো বলতে পারেন বাড়তি একটি ডিভাইস বহন করা ঝামেলার কিন্তু আমার মতে ব্যায়াম এবং অন্যান্য কিছু ক্ষেত্রে সত্যিকার অর্থেই সহায়ক হতে পারে চমৎকার এই ডিভাইসটি। পাশাপাশি, নতুন আইডিয়া থেকেই বড় কিছুর সূচনা যেহেতু হয়ে থাকে ফলে স্পটিফাই প্লেয়ারও হতে পারে সেই বড় কিছু একটার সূচনা মাত্র!    

চমৎকার প্রযুক্তি পণ্য: Mighty Audio


বর্তমান সময়ে বলা যায় চারদিকে স্মার্টফোনের বিপ্লব চলছে। আইটি প্রফেশনাল, বিজনেস এক্সিকিউটিভ থেকে শুরু করে, শিক্ষক, ছাত্র, গৃহিণী কিংবা আমজনতা সকলের হাতেই এখন স্মার্টফোন শোভা পাচ্ছে। বলা যায় আধুনিক জীবনযাত্রার এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে স্মার্ট ফোন।


বাজারে বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম চালিত স্মার্ট ফোন থাকলেও অ্যান্ড্রয়েড চালিত স্মার্ট ফোন গুলোই চাহিদার শীর্ষে রয়েছে। তুলনামূলক কম মূল্যে অধিক সুবিধা, বিভিন্ন ধরণের কাস্টোমাইজেশন সুবিধা থাকার কারণেই স্মার্টফোনের বাজারে অ্যান্ড্রয়েড এত জনপ্রিয়।


তবে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা প্রায়ই যে ব্যাপারটি নিয়ে বিরক্তি এবং অভিযোগ করে থাকেন তা হলো অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের ব্যাটারি ব্যাকআপ। শক্তিশালি প্রসেসর, র‍্যাম, হাই রেজুলেশন ডিসপ্লে এবং নানাবিধ ব্যবহারের কারণর অধিক ধারণক্ষমতা সম্পন্ন ব্যাটারি থেকেও অনেক সময় দেখা যায় ব্যবহারকারী ব্যক্তি তার কাঙ্ক্ষিত ব্যাটারি ব্যাকআপ পাচ্ছেন না।

অথচ সহজ কিছু টিপস ফলো করে সহজেই ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়িয়ে নেয়া সম্ভব।আজকে আপনাদের জন্য থাকছে অ্যান্ড্রয়েডে ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়ানোর সহজ কিন্তু অত্যন্ত কার্যকর কিছু কৌশল। চলুন তবে দেখে নেই কিভাবে কি করবেন

সাধারণ কর্মপদ্ধতি

১) বিনা প্রয়োজনে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের  Wifi, GPS, Bluetooth, 3G কানেক্টিভিটি অন করে রাখবেন না। Wifi, GPS, Bluetooth, 3G প্রচুর ব্যাটারি ইউটিলাইজ করে থাকে।

২) আপনার ডিভাইসটি অটো ব্রাইটনেস সমর্থিত হলে সেটি অটো করে রাখাই ভাল। অটো ব্রাইটনেস না থাকলে ম্যানুয়ালি সেট করে নিলে ভাল ব্যাকআপ পাওয়া যায়। সব সময় ডিসপ্লে ব্রাইটনেস ১০০ তে দিয়ে রাখার প্রয়োজন নেই। নিচের ডাটা অনুযায়ী ব্রাইটনেস সেট করে আমরা ব্যাটারি ব্যাকআপে বেশ উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন দেখেছি।


দিনের বেলা
ঘরের ভিতরঃ 30-40%
ঘরের বাইরেঃ 50-70%
রাস্তায়ঃ 90-100%
রাতের বেলা
ঘরের ভিতরঃ 05-30%
ঘরের বাইরেঃ 15-40%
রাস্তায়ঃ 20-40%
মোট কথা, অযথা বেশি ব্রাইটনেস ব্যবহার না করে সময় উপযোগী ব্রাইটনেস ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। এতে আপনার দৃষ্টি শক্তি যেমন ভাল থাকবে, ব্যাটারি ব্যাকআপও বৃদ্ধি পাবে অনেক গুণ।

৩) লাইভ ওয়ালপেপার জিনিসটা ব্যবহার না করাই শ্রেয় কেননা এটি বেশ ভাল ব্যাটারি ইউটিলাইজ করে। বিশেষ কোনও প্রয়োজনে যেমন বন্ধু মহলে ডিভাইসটির আকর্ষণ বাড়াতে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারেন তবে নিজের হাতে আসতেই সাধারণ ওয়ালপেপার সেট করে নিন। কারও কারও মতে কালো রঙের ওয়ালপেপার ব্যবহার করলে আরও ভাল ফল পাওয়া যায়।

৪) সেন্সর ব্যবহার করে কাজ করে এমন কোনও অ্যাপস বন্ধ করতে চাইলে কেবল মিনিমাইজ না করে পুরোপুরি বন্ধ করবেন। আইসক্রিম স্যান্ডউইচ এবং এর পরবর্তি অ্যান্ড্রয়েড ভার্সনগুলোতে খুব সহজেই হোম বাটন চেপে ধরে সেই এপস টাকে ডানে বামে সোয়াইপ করে বন্ধ করতে পারবেন। অন্যান্য ভার্সনের ক্ষেত্রে কোনও ভাল টাস্ক ম্যানেজার ব্যবহার করুন।


৫) একটার বেশি Antivirus কিংবা Battery Saver অ্যাপস কখনও ব্যবহার করবেন না। Juice Defender অ্যাপসটি ব্যাটারি সেভার হিসেবে বেশ কাজের। গুগল প্লে স্টোর থেকে এটি বিনা মুল্যে সংগ্রহ করা যাবে।

৬) রুটেড ডিভাইস ব্যবহারকারীগন অ্যাপ রান টাইম ম্যানেজমেন্ট এর জন্য  Greenify অ্যাপটি ব্যাবহার করতে পারেন। এতে করে অযাচিত, অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস আপনার ডিভাইসের ব্যাকগ্রাউন্ড এ রান করতে পারবে না, ফলে ব্যাটারি অনেক বাড়বে। এই অ্যাপটিও প্লে স্টোর থেকে বিনা মুল্যে ডাউনলোড করা যাবে।



এতক্ষন যে কৌশলগুলো অনুসরণ করতে বলা হয়েছে সেগুলো আমরা অনেকেই জানি। এবার আসুন কিছু অ্যাডভান্সড কৌশল জেনে নেই।
অ্যাডভান্সড কর্মপদ্ধতি

কৌশলগুলো কেবল মাত্র  Li-ion ব্যাটারির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। প্রায় সব ফোনেই আজকাল Li-ion ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়। অনেকে এ পদ্ধতিগুলোর সাথে দ্বিমত প্রকাশ করতে পারেন। কিন্তু ইন্টারনেট ঘেঁটে এবং নিজেদের অভিজ্ঞতা থেকে আমরা এ পদ্ধতিতেই ভাল ফল পেয়েছি। আশা করি আপনারাও এতে উপকৃত হবেন।
ব্যাটারিকে সহজে ১৫-২০% এর নিচে ড্রেইন হতে দিবেন না অর্থাৎ ব্যাটারি ১৫-২০% হলেই  দেরি না করে চার্জে লাগাবেন।
নিতান্তই বাধ্য না হলে চার্জে লাগানো অবস্থায় ফোন চালাবেন না।
চার্জ একটানা দেয়ার চেষ্টা করবেন। খেয়াল রাখবেন একবার চার্জে লাগালে অন্তত যাতে ৩৫% চার্জ একবারেই হয়। আর পুরো একটানা দিতে পারলেতো কথাই নেই।
ব্যাটারি ১০০% হওয়ার পর এক সেকেন্ডও আর চার্জে লাগিয়ে রাখবেন না। ১০০% চার্জ হওয়ার সাথে সাথেই সেটি আনপ্লাগ করুন। মনে রাখবেন রাত্রে ফোন চার্জে লাগিয়ে কখনও ঘুমাবেন না।
ঘন ঘন আপনার ফোনটি চার্জ দিবেন না। চার্জ ৫০% এর উপর থাকলে অযথাই চার্জে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। তবে ৩৫-৩০% এর নিচে নামার পর চার্জে দেওয়া যাবে।
যেসব অ্যাপস এর Wakelock আছে সেসব অ্যাপস পরিহার করার চেষ্টা করুন। Wakelock আছে কিনা তা Better Battery Stats এই অ্যাপসটি দিয়ে দেখে নিতে পারেন।




প্রতি মাসে বা বিশ দিনে একবার ব্যাটারি সম্পূর্ণ ০% হয়ে ফোন বন্ধ হয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন, বন্ধ হলে আবার চালান,কিছুক্ষন চলে আবার বন্ধ হলে একটানা কোন বিরতি ছাড়া ১০০% পর্যন্ত চার্জ দিন, ১০০% হলে ফোন চার্জ থেকে খুলুন এবং ফোন বন্ধ করুন। এবার ব্যাটারি খুলে তা আবার সেটে লাগান এবং সেট অন করুন। দেখবেন ১০-১২% চার্জ কমে গেছে। এ অবস্থায় ফোনটি আবার চার্জে দিন এবং চার্জ ১০০% হলে ডিভাইস আনপ্লাগ করুন। এই কাজটা প্রতি ২০-৩০ দিনে একবার করবেন।
উপরের টিপস গুলো যথাযথ অনুসরণ করে আপনারা আপনাদের অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়িয়ে নিতে পারবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি। তো আর দেরি না করে যারা তাদের ব্যাটারি নিয়ে হতাশায় ভুগছেন, তারা কৌশলগুলো অনুসরণ করুন। আর এ সংক্রান্ত কোন মতামত আমাদের জানাতে ভুলে যাবেন না যেন।





আপনার এন্ড্রয়েড এর ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়ানোর কিছু সাধারণ ও অ্যাডভান্সড উপায়




একটি কম্পিউটারে যেমন এন্টিভাইরাস এর প্রয়োজন হয় তেমনি একটি মোবাইলে ও এন্টিভাইরাস এর প্রয়োজন হয় বিশেষ করে ফোনটি যখন এন্ড্রয়েড চালিত ফোন হয়। একটি কম্পিউটার যেমন ভাইরাস এ আক্রান্ত হতে পারে তেমনি একটি মোবাইল ফোন ও ভাইরাস এ আক্রান্ত হতে পারে। আর এই ভাইরাস গুলো আসে বিভিন্ন কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট এর অনেক ক্ষতিকারক ওয়েবসাইট থেকে।

একটি কম্পিউটার যখন ভাইরাস আক্রান্ত হয় তখন সেই কম্পিউটার এর অনেক সমস্যা হয়। যেমন, কম্পিটার স্লো হয়ে যাওয়া, হ্যাং হয়ে যাওয়া, গুরুত্বপূর্ণ্য ফাইল ডিলিট হয়ে যাওয়া ইত্যাদি। তেমনি একটি মোবাইল ফোন যখন ভাইরাস আক্রান্ত হবে তখন ঠিক একই রকম সমস্যা দেখা দিবে কিন্তু আপনি বুঝতে পারবেন না আসলে সমস্যা কি হচ্ছে।

এন্টিভাইরাস কিঃ
এন্টিভাইরাস কি এটার বিস্তারিত বলা লাগবে না আশা করি। তারপরও সংক্ষিপ্ত করে বলি। এন্টিভাইরাস হল এমন একটি প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার যা কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনকে ক্ষতিকারক ভাইরাস হতে মুক্ত রাখে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এই প্রোগ্রাম গুলো তৈরী করে থাকে। তার মধ্যে জনপ্রিয় কিছু এন্টিভাইরাস হলঃ কেস্পারস্কি, এভিরা, নরটন, এভিজি ইত্যাদি। আর এগুলোর মোবাইল ভার্সন ও রয়েছে যা টাকা দিয়ে ক্রয় করতে হয়।
আজকে যেহেতু আমরা মোবাইল এন্টিভাইরাস নিয়ে আলোচনা করছি সেহেতু আমরা অন্যদিকে না যাই। গুগল প্লে ষ্টোরে সার্চ দিলে আপনি মোবাইলের জন্য অনেক এন্টিভাইরাস ই পাবেন। সেগুলোর মধ্যে কিছু ফ্রী আবার কিছু পেইড। যাই হউক আজকে আমি এমন একটি এন্টিভাইরাস নিয়ে আলোচনা করছি সেটি হল একদম ফ্রী, নিরাপদ এবং ১নাম্বার সিকিউরিটি এপ্স।
আজকে আমরা যে এন্টিভাইরাসটি নিয়ে আলোচনা করছি সেটি হল Trustlook Security। আমার দেখা মতে এই এপ্সটিই একমাত্র ফ্রী এপ্স যা কি না আপনার এন্ড্রয়েন ফোন অথবা ট্যাবলেটকে নিরাপদ রাখতে পারে। আমি নিজে এই এপ্সটি ব্যবহার করছি। অনেক ভালো সার্ভিস দেয়। এপ্সটি অনেক ছোট তবে কাজ করে অনেক বেশী।

Tustlook Security এর কিছু বৈশিষ্ট্যঃ
AntiVirus and AntiSpyware
Speed boost with memory cleaning
Data Backup & Restore
Locate and Find Phone and AntiTheft
Family Security
Privacy Manager
Wearable Device Support
আশা করি বুঝতে পারছেন যে কি কি গুনের অধিকারী এই এন্টিভাইরাসটি। ৯ মেগাবাইট এর এই এন্টিভাইরাসটি আপনার মোবাইলকে ক্ষতিকারক ভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে পারে। আর যদি অন্য কোন এপ্স এর কথা বলি তাহলে বলবো আন-ইন্সটল দিয়ে দেন। অন্য যে গুলো আছে সে গুলো আপনার মোবাইলকে স্লো করে দেয়। হয়ত আপনি টের পান না। যেমনঃ এভাস্ট, এভিজি ইত্যাদি মোবাইল ভার্সন এন্টিভাইরাস গুলো একটি মোবাইলকে স্লো করে দিতে সক্ষম। আর যদি আপনার মোবাইলটি হাই-কনফিগারেশন এর হয় তাহলে এই এপ্সগুলো ব্যবহার করতে পারেন। তাহলে চলুন এখন এই এপ্স সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে আসি।


এপ্স সম্পর্কেঃ
নামঃ Trustlook Antivirus & Mobile Security
ভার্সনঃ ২.৪.৩
ফাইল সাইজঃ ৯.৭৩ মেগাবাইট (9.73MB)
ফাইল ধরনঃ APK







এন্ড্রয়েড ফোনে এন্টিভাইরাস হিসেবে কোনটি ব্যবহার করবেন? দেখে নিন কোন এন্টিভাইরাসটি আপনার জন্য নিরাপদ।



বর্তমানে চারপাশে যেদিকেই তাকাবেন প্রায় সবার হাতেই ‘অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের’ স্মার্টফোন দেখতে পারবেন। এরকম নয় যে অনান্য অপারেটিং সিস্টেমের স্মার্টফোন মানুষ ব্যবহার করেনা তবে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আধিক্য বেশি। এর মূল কারন হচ্ছে এই অপারেটিং সিস্টেমের চমৎকার সব স্মার্টফোন যেমন কিনতে অনেক টাকা লাগে ঠিক তেমনি এর লো-এন্ড ফোনগুলোর দামও আবার থেকে যায় হাতের নাগালের মধ্যেই।

তবে, অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের একটি কমন সমস্যা হচ্ছে এটি সময়ের সাথে সাথে কিছুটা ধীর গতির হয়ে যায়। তাই, আজকে আমি কিছু টিপস শেয়ার করব যার সাহায্যে সম্পুর্ন না হলেও আপনার স্মার্টফোনটিকে অনেকাংশেই স্মুথ করে তোলা সম্ভব হবে।
১। আপনার স্মার্ট ফোনটির ফার্মওয়্যার আপডেট করুনঃ আপডেটেড ফার্মওয়্যার অনেক ক্ষেত্রেই কিছু ল্যাগের সমস্যা দূর করে থাকে। ‘আপডেট’ এর অর্থই হচ্ছে আগের তুলনায় নতুন কিছু সুবিধা যোগ করা। আর, ফার্মওয়্যার আপডেটের মাধ্যমে স্মার্টফোন ছাড়াও প্রতিটি ডিভাইসেরই কম-বেশি ক্যাপাবিলিটি বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। অনেক সময় হয়ত সেই পরিবর্তন আপনার চোখে পরবে না তবে এমন অনেক ত্রুটি মুক্ত করার জন্য স্মার্টফোনের ফার্মওয়্যার আপডেট করা জরুরী।

২। আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি ‘রিসেট’ করুনঃ আমরা সবাই জানি যে ‘রিসেট’ করার অর্থ হচ্ছে ‘পুনঃস্থাপন করা’ বা ‘নতুন করে করা’, আর স্মার্টফোনের ক্ষেত্রেও ‘রিসেট’ অপশনটি ঠিক এর অর্থের মতই কাজ করে। আপনার নিশ্চয়ই মনে আছে যে আপনি যখন আপনার স্মার্টফোনটি কিনে এনেছিলেন তখন আপনার স্মার্টফোনটির অপারেটিং ছিল ভীষন স্মুথ? কিন্তু, সময়ের সাথে আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনটির মধ্যে নানা রকম ফাইল জমা পরার কারনে সেই স্মার্টফোনটি হয়ে গিয়েছে ল্যাগি।
এক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার স্মার্ট ফোনটি ‘ফ্যাক্টোরি রিসেট’ করেন তবে স্মার্ট ফোনটি থেকে সব ফাইল মুছে গিয়ে ঠিক সেই প্রথম কিনে আনার দিনের মত স্মুথ হয়ে যাবে। সব ফাইল বলতে আমি আপনার ব্যবহারের জন্য যে ফাইল গুলো জমা হয়েছিল সেগুলোই বুঝাচ্ছি। কিন্তু এতে করে যেহেতু সিস্টেম ফাইল মুছে যাচ্ছেনা তাই আপনি রিসেট করার পর পাবেন একদম স্মুথ একটি স্মার্টফোন।সতর্কতাঃ ‘ফ্যাক্টোরি রিসেটের’ ফলে আপনার স্মার্ট ফোনের ইন্টারন্নাল স্টোরেজে থাকা প্রয়োজনীয় কন্টাক্ট, ক্ষুদে বার্দা, ক্যালেন্ডার এনট্রি, মেমো এবং আপনি যে অ্যাপলিকেশন গুলো ব্যবহার করতেন - এগুলো সব মুছে যাবে। তাই, রিসেট করার পূর্বে অবশ্যই প্রয়োজনীয় সব তথ্য গুলো ব্যাক-আপ নিয়ে রাখুন। যদিও, গুগলের অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের ফলে কন্টাক্ট এবং ক্যালেন্ডার এন্ট্রি সহ কিছু ক্ষেত্রে ক্ষুদে বার্তাও সিনক্রোনাইজড হয়ে থাকে।

৩। মাঝে মাঝেই আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ চেক করুনঃ স্মার্ট ফোনের মেমরীর পরিমান কমে গেলে স্মার্ট ফোনে আপনি ল্যাগ অনুভব করতে পারেন। এজন্য, আপনি মাঝে মাঝে আপনার ইন্টারনাল ফাইলে জমে থাকা গেমস, অ্যাপলিকেশন, মিডিয়া ফাইল যেমন, গান, ভিডিও ইত্যাদি এক্সটার্নাল স্টোরেজ তথা মেমরী কার্ডে চালান (ট্রান্সফার) করে দিন। তবে, বেশির ভাগ লো-এন্ড স্মার্টফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজের পরিমাণ কম হয়ে থাকে বিধায় এই টিপসটি সেই সব স্মার্ট ফোনে কাজ নাও করতে পারে।

৪। প্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেনঃ আপনি গুগল প্লে স্টোর থেকে টাস্ক কিলারের মত কিছু প্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন ইন্সটল করে ব্যবহার করতে পারেন।
● পুরোনো স্মার্ট ফোন গুলোর ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন ‘auto task killer’ অ্যাপলিকেশনটি। এটি আপনার নির্ধারিত ‘n’ সময় অন্তর অন্তর আপনার নির্ধারিত কিছু অ্যাপলিকেশনের প্রোসেস কিল করে স্মার্ট ফোনের র‍্যাম ফ্রি করতে সাহায্য করবে এবং স্বাভাবিক ভাবেই, বেশি র‍্যাম ফ্রি থাকার অর্থ হচ্ছে স্মার্ট ফোন দ্রুত অপারেট হবে।
● ভালো মানের একটি এন্টিভাইরাস অ্যাপলিকেশন ব্যবহার করতে পারেন। কম্পিউটারের মত স্মার্টফোনও নানা রকম ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার দ্বারা আক্রান্ত হয়ে থাকে এবং একটি ভালো এন্টিভাইরাস এই সকল ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যারকে সনাক্ত করন এবং পরে মুছে ফেলে আপনার স্মার্টফোনটিকে কিছুটা হলেও গতিশীল করবে।● ব্যবহার করতে পারেন ‘start up manager’ এর মত কিছু অ্যাপলিকেশন। এই অ্যাপলিকেশনের ফলে আপনি আপনার ফোন বুট বা রিস্টার্ট হবার সময় নির্ধারন করে দিতে পারবেন যে ঠিক কোন অ্যাপলিকেশন গুলো সক্রিয় হবে আর কোন গুল নিষ্ক্রিয় থাকবে।
● ‘Juice defender’ টাইপের অ্যাপলিকেশনগুলো অনান্য অ্যাপলিকেশন গুলোকে ব্যাকগ্রাউন্ডে অটোমেটিক স্টার্ট হতে না দিয়ে আপনার ফোনের এবং আপনার ফোনের ব্যাটারীকে সাপোর্ট দিয়ে যাবে।
● ‘cache cleaner’ অ্যাপলিকেশনগুলো মোবাইলের মেমরীতে জমে থাকা বিভিন্ন রকম কেচ ফাইল মুছে দিয়ে স্মার্টফোনকে স্মুথ করবে।
● ‘Apps to SD card’ অ্যাপলিকেশনটি একটি প্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন। এর সাহায্যে আপনি আপনার স্মার্ট ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজে ইন্সটলড থাকা অ্যাপলিকেশনগুলো আপনার ফোনের এক্সটার্নাল মেমরী কার্ডে ট্রান্সফার করতে পারবেন এবং এতে করে ইন্টার্নাল স্টোরেজ ফ্রী হবে, বিধায় কিছুটা হলেও স্মার্ট ফোন দ্রুত কাজ করবে। তবে মনে রাখবেন, এই অ্যাপলিকেশনটির সাহায্যে সকল প্রকার অ্যাপলিকেশনই মেমরী কার্ডে ট্রান্সফার করা সম্ভব হবেনা, কিছু কিছু অ্যাপলিকেশন ট্র্যান্সফার করার জন্য আপনার ফোনটিকে ‘রুট’ করে নিতে হবে।
● ’Spare parts’ জাতীয় অ্যাপলিকেশনগুলো কিছুটা অ্যাডভান্স লেভেলের কনফিগারেশন প্যানেলে আপনাকে এক্সেস করতে দিবে, যেমন ধরুন- ট্র্যানজিশান অ্যানিমেশন কনট্রোল।





৫। অপ্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন গুলো মুছে ফেলুনঃ আমরা বিভিন্ন সময়ে প্লে স্টোরে ঘুরতে ঘুরতে দেখা যায় অনেক রকম অ্যাপলিকেশন ইন্সটল করি কিন্তু পরবর্তী সময়ে সেই অ্যাপলিকেশন গুলো খুব একটা ব্যবহার করিনা। এরকম অপ্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন মুছে ফেলা উচিৎ। এতে করে স্মার্টফোনের র‍্যাম ফ্রি থাকবে এবং ফলাফল স্বরূপ আপনার স্মার্ট ফোনটি আগের তুলনায় কিছুটা হলেও ল্যাগ ফ্রি হবে।
৬। স্মার্ট ফোনটি রিস্টার্ট করুনঃ আমরা কম্পিউটারে কোন সমস্যায় পরলে কম্পিউটার রিস্টার্ট দিয়ে থাকি, তাতে করে কম্পিউটারের সমস্যা কিছু ক্ষেত্রে দূর হয়ে যায়। স্মার্ট ফোনের ব্যপারটি একই। যদিও, এই ট্রিকসটি একটি টেম্পোরারী অপশন, তবুও এটা কাজ করে।
৭। আপনার স্মার্ট ফোনটি রুট করুনঃ স্মার্ট ফোন ‘রুট’ করার ফলে আপনি কিছু অ্যাডিশনাল সুবিধা পাবেন এবং সেই সুবিধা গুলোকে কাজে লাগিয়ে আপনি আপনার স্মার্ট ফোনটি আরও ভালো ভাবে কাজে লাগাতে পারবেন। যদিও এক্ষেত্রে রুটিং প্রোসেসটি এক প্রকারের রিস্কি সমাধানের পর্যায় পরে তবে এখন ইন্টারনেটে বিভিন্ন সাইট এবং ফোরামের কল্যাণে স্মার্ট ফোন ‘রুট’ করা এখন বলা চলে অনেক সহজ এবং ঝুঁকির পরিমানও ঠিক আগের মত নেই।
ঝুঁকির কথা বললাম কেননা, আপনি যদি রুট করার সময় সফল না হন তবে আপনার স্মার্ট ফোনটি ব্রিক অবস্থায় চলে যেতে পারে। আবার, আপনি সফল ভাবে রুটিং প্রোসেস সম্পন্ন করলেও আপনার স্মার্ট ফোনের সাথে দেয়া ‘ওয়ারেন্টির’ অফারটা শেষ হয়ে যাবে যদিও এখন আপনি চাইলেই আপনার রুটেড অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি আন-রুট করতে পারবেন এবং ওয়ারেন্টি ফিরে পাবেন। এখন বলি যে, একটি অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম চালিত স্মার্ট ফোন স্পিড আপ এর সাথে এই রুটিং এর কী সম্পর্ক।








ওভার ক্লকঃ আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি রুট করার পর ডিভাইসের প্রসেসরটি ওভারক্লক করতে পারবেন এবং একটি ওভার ক্লকড প্রসেসর স্বাভাবিক ভাবেই স্বাভাবিক অবস্থায় থাকা প্রসেসরের তুলনায় বেশি পরিমান কাজ করতে সক্ষম হবে। তাই, প্রসেসর ওভার ক্লক করার মাধ্যমে আপনি এভাবেই আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনটির গতি বৃদ্ধি করতে পারবেন।

● কাস্টম রমের ব্যবহারঃ আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি রুট করার পর ডিভাইসটিতে কাস্টম রম ব্যবহারের সুবিধা পাবেন। যদিও, কাস্টম রম ব্যবহার কিছুটা অ্যাডভান্স লেভেলের পর্যায়ে পরে এবং ঝুঁকি পূর্ন তবুও কাস্টম রম ব্যবহার করে স্মার্ট ফোনের গতি বৃদ্ধি করা যায় খুব সহজেই।
কেননা, কাস্টম রমে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন থাকে না বললেই চলে এবং এর ফলে কোন অ্যাপলিকেশন অহেতুক স্মার্ট ফোনের র‍্যামের রিসোর্স ব্যবহার করেনা এবং এছাড়াও কাস্টম রম ব্যবহারের ফলে স্মার্ট ফোনের কিছু বাগ ফিক্স হয়ে যায়। তবে ঝুঁকির কথা বললাম এজন্যেই যে মাঝে মাঝে কাস্টম রম গুলো স্ট্যাবল হয় না এবং এর ফলে নানা রকম সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে।

● অপ্রোয়োজনীয় সিস্টেম অ্যাপ মুছে ফেলতে পারবেনঃ প্রতিটি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্ট ফোনের স্টক রমে দেখা যায় নানা রকম অ্যাপলিকেশন প্রি-ইন্সটলড করা থাকে যা অনেকেই ব্যবহার করেন না। ‘রুট’ করার ফলে আপনি যেহেতু আপনার ডিভাইসের অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ক্ষমতা হাতে পাচ্ছেন সে কারনে আপনি চাইলে সিস্টেমে ইন্সটল্ড থাকা অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো মুছে ফেলতে পারবেন ফলে আপনার স্মার্ট ফোনটি কিছুটা হলেও হবে স্মুথ এবং দ্রুত গতির।
সতর্কতাঃ সিস্টেম অ্যাপ মুছে ফেলার ক্ষেত্রে অবশ্যই অ্যাপ গুলোর ব্যাক-আপ নিয়ে রাখবেন। এক্ষেত্রে চমৎকার একটি অ্যাপলিকেশন হচ্ছে ‘Titanium Backup’ অ্যাপটি।


আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনকে ল্যাগ মুক্ত স্পিড আপ করার ৭টি টিপস


অ্যানড্রয়েড বা আইওএস ফোনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাপস ফেসবুক মেসেঞ্জারে এতদিন পর্যন্ত একটি অ্যাকাউন্ট চালানো যেতো। ইচ্ছে করলে এখন একটি মেসেঞ্জারে চালানো যাবে একাধিক ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার অ্যাকাউন্ট।


মেসেঞ্জার আপডেট করিয়ে নিলে নতুন মেসেঞ্জার অ্যাপে একাধিক অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের সুবিধা পাওয়া যাবে। এনগ্যাজেটের প্রতিবেদন অনুসারে,‘ফেসবুক নতুন একটি পদ্ধতি চালু করেছে যা দিয়ে প্রত্যেকের সাথে যোগাযোগ আরও সহজ হবে।’

একাধিক অ্যাকাউন্ট অ্যাপসে যোগ করার জন্য ম্যাসেঞ্জার অ্যাপসের সেটিংস এ গিয়ে ‘অ্যাকাউন্টস’ অপশনে যেতে হবে। অ্যাকাউন্টসের পাশে যে প্লাস (+) চিহ্ন আছে সেখানে টাচ করলে ‘সাইন ইন টু অ্যাড অ্যানাদার অ্যাকাউন্ট’ অপশন আসবে। সেখানে অ্যাকাউন্টের নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ‘অ্যাড’ অপশনে টাচ করলেই নতুন অ্যাকাউন্ট যুক্ত হয়ে যাবে। তবে একটি অ্যাকাউন্ট সচল থাকা অবস্থায় অন্য অ্যাকাউন্টটি ডিএকটিভেট হয়ে থাকবে।

ফেসবুক মেসেঞ্জারে একাধিক অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের সুবিধা করে দিলেও ফেসবুক অ্যাপস থেকে চ্যাট করার বা বার্তা আদান প্রদানের সুবিধা বন্ধ করে দিয়েছে। বর্তমানে সারা পৃথিবীতে ৮০০ মিলিয়ন মানুষ নিয়মিত মেসেঞ্জার ব্যবহার করে।

আপনি যেভাবে একাধিক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট চালাবেন ফেসবুক মেসেঞ্জারে


যুগ বদলাতে শুরু করেছে। এখন সব কিছু শর্টে বলার যুগ। ধরুন আপনি এ যুগে আপনি কাউকে বললেন, তাড়াতাড়ি কর। তাহলে আপনার বলা উচিত, ASAP (As soon as possible)-কর। কিংবা কোনও কিছুতে আপনার খুব হাসি পেল।


এবার সেটা আপনি টেক্সটে লিখবেন, হয় আপনাকে স্মাইলি পাঠাতে হবে। অথবা খুব জোরে হাসি পেলে আপনার লেখা উচিত LOL (laugh out loud)। এরকমই চলছে ফেসবুক, টুইটার, সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে। এগুলোকে নেট দুনিয়ার পরিভাষায় বলা হয় Internet Slang Words বা Computer Slang।

এমনই কিছু Internet Slang Words-এর কথা বলা হল যেগুলো আপনার কাজে লাগতে পারে। কখন কীভাবে ব্যবহার করা যায়, পুরো মানেটাই বা কী হয়।


খুব উপভোগ করার পরামর্শ দিতে

YOLO - You Only Live Once
----------------


সত্যি কথা বলার আগে

TBH - To Be Honest
----------------


আপনি সত্যিই জানি না বলতে

IONO - I Don't Know
-------------


আর দরকার নেই বলতে

SNM - Say No More
-----------


কথা বলতে চাইলে

TTY - Talk To You
------------


মনের মিল হলে

H2H - Heart To Heart
----------


ইয়ার্কি মারার পর

IJK - I'm Just Kidding
-------


শুভেচ্ছা জানাতে

GL - Good Luck
-------------


দ্বিধা কাটাতে

DBA-- Don't Bother Asking
---------


তাড়াতাড়ি করার কথা বললে

QAP - Quick As Possible
------


কোনও কিছুর খুব গুরুত্ব বোঝাতে

VBD-- Very Big Deal
----------


বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটানোর সময়

FHO-- Friends Hanging Out
----------


কাউকে কোনও কিছু জানাতে হলে

INCYDK-In Case You Didn't Know
---------


কোনও কিছু বলতে বা দেখাতে না চাইলে

403-Deny Access To
----------


কাউকে ধন্যবাদ জানাতে হলে

YSVW---You're So Very Welcome
------------


কোনও বড় লেখার অনিচ্ছা প্রকাশ করলে

TLTR Too Long To Read
-------------


জানি না বলতে

IONO - I Don't Know
-------


কোনও কিছু স্বীকার করতে

TBH - To Be Honest

এই সংকেতগুলো না জানলে ফেসবুকে আপনি কাঁচা!





সামাজিক যোগাযোগের সবচেয়ে বড় মাধ্যম ফেসবুকে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন আসছে। নানা নতুন ফিচার আসছে। এসব ফিচার আপনি পছন্দ নাই করতে পারেন।

আর তাই এখানে বিরক্তিকর তিনটি ফিচার খুব সহজে বন্ধ করার উপায় দেয়া হলো। তিনটি বিরক্তিকর ফিচার হল অটোপ্লে, অ্যাপ নোটিফিকেশন এবং অপ্রয়োজনীয় পোস্ট। নিচে এই ফিচার বন্ধের উপায় দেয়া হল




অ্যাপ নোটিফিকেশন

অ্যাপ ও গেমসের নোটিফিকেশন ফেসবুকে যদি দেখতে না চান তাহলে ফেসবুক লগইন করে ‘Settings’ এ গিয়ে ‘Apps’ এ ক্লিক করতে হবে। এখানে সবগুলো ইনস্টলকৃত অ্যাপের তালিকায় মাউস পয়েন্টারের পেনসিলের মতো আইকনে ক্লিক করতে হবে। আর এই বক্স থেকেই সেটিংস নিজের পছন্দমতো বদলানো যাবে।


অপ্রয়োজনীয় পোস্ট


ফেসবুকে থাকা বন্ধুর পোস্ট দেখতে না

চাইলে প্রথমে সেই বন্ধুর যে কোনো পোস্টের ডান পাশের কোনায় নিচের দিকের তীর চিহ্নে ক্লিক করতে হবে।

এখান থেকে ‘Hide all from’ এ ক্লিক করতে হবে অথবা তার প্রোফাইলে গিয়ে ‘Unfollow করে দিলেও একই কাজ হবে।


অটোপ্লে

ফেসবুকের নিউজ ফিডে আসা ভিডিওগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে যায়। এটি বন্ধ করতে হলে ফেসবুক লগইন করতে হবে। প্রোফাইলে গিয়ে ডান পাশে তীর চিহ্নে স্ক্রল করে ‘Settings’ এ ক্লিক করতে হবে। বাম পাশে সবার নিচে ‘Videos’ এ ক্লিক করতে হবে। এখন ‘Auto-Play Videos’ এ গিয়ে ‘Off’ নির্বাচন করতে হবে।

ফেসবুকের ৩ বিরক্তিকর ফিচার বন্ধ করার উপায়!


আমাদের দেশের সিম কোম্পানিগুলোর প্রতি অনেকেরই যে অভিযোগটি রয়েছে, তা হল এই কোম্পানিগুলো টাকার বিনিময়ে পর্যাপ্ত ডাটা দেয়না। আর অনেক চেষ্টার পরেও এর কোন প্রকার সমাধান হয়নি। ডাটা প্যাকেজ এর দিক দিয়ে আমরা এদের কাছে সব সময় অসহায়
। কারণ আনলিমিটেড ডাটা প্ল্যান ইউজ করা আমাদের অনেকের পক্ষে সম্ভব না। তাই স্মার্টফোন কেনার পর আমাদের অনেক ভেবে চিনতে ডাটা ইউজ করতে হয়। আর এক্ষেত্রে ডাটা সেভ করার জন্য নিচের টিপস গুলো আমাদের সবার কাজে লাগবে। তো চলুন দেখি কিভাবে আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের ডাটা খরচ কমাবেন…
অটো আপডেট বন্ধ করাঃ
সাধারণত আপনার ডিভাইসে ইন্সটল করা অ্যাপ গুলো নেট কানেকশন পেলে প্লে স্টোর থেকে আপডেট ডাউনলোড করে থাকে। তবে অনেক ক্ষেত্রে এই আপডেট আপনার বিরক্তির কারণ হয়ে দাড়ায়। কারণ অ্যাপ গুলো আপডেট হওয়ার সময় আপনার ডিভাইসটি তুলনামূলক ভাবে স্লো হয়ে যায়। এছাড়া আপডেটের কারণে আপনার ইচ্ছার বিরুদ্ধে আপনার স্মার্টফোনের ডাটা প্যাকেজের ডাটাও খরচ হতে থাকে। তো চলুন দেখি কিভাবে অটো আপডেট বন্ধ করবেন।

১) প্রথমে আপনার ডিভাইসে Play Store অ্যাপটি ওপেন করুন। এরপর আপনার ডিভাইসের মেনু বাটন বা ডিভাইসের 3 Dot মেনুতে ক্লিক করুন।
২) এবার আপনি যে মেনু পাবেন সেখান থেকে প্লে স্টোর সেটিং অপশনে ক্লিক করুন। এবার সেটিংস মেনু থেকে  ‘Auto-update apps’ অপশন সিলেক্ট করুন।
৩) ‘Auto-update apps’ অপশনে ক্লিক করার পর আপনি নিচের তিনটি অপশন সহ একটি পপ আপ পাবেন…
-Do not auto-update apps
-Auto-update apps at any time. Data Charges may apply and
-Auto-update apps over Wifi only
৪) এই তিনটি অপশন থেকে প্রথম অপশনটি সিলেক্ট করে দিন।
অ্যাপ ডাটা সেটিংঃ

অনেক সময় আমাদের ডিভাইস গুলোতে এমন কিছু অ্যাপ থাকে যা নিজে নিজেই নিয়মিত আপডেট হয়। যেমন ধরুন Google+। সাধারণত Google+ আপনার ডিভাইসে থাকা ছবি গুলো ক্লাউডে ব্যাকআপ করে থাকে, যাতে যেকোন সময় আপনি আপনার ইচ্ছা মত ছবি গুলো দেখতে পারেন। এক্ষেত্রে ছবিগুলো যদি বড় মাপের তাহলে তো কথাই নেই, আপনার ডাটা প্ল্যানের বারোটা বাজতে খুব একটা সময় লাগবে না। এক্ষেত্রে আপনি যা করতে পারেন তা হল এই ধরণের অ্যাপগুলোর Settings > Auto-Backup যেয়ে আপনার মিডিয়া ফাইল গুলোর জন্য ব্যাকআপ অপশন সিলেক্ট করে দিতে পারেন।

Restrict background Data

এবার আসি এমন কিছু অ্যাপের কথায় যারা ঘুমানোর সময় ও খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে না। অর্থাৎ যে অ্যাপ গুলো ইনঅ্যাক্টিভ অবস্থায় ও ডাটা ব্যবহার করে থাকে। সাধারণত জিপিএস ডাটার উপর ভিত্তি করে অ্যাপ গুলো অটো আপডেট হয় বলেই এমনটি হয়ে থাকে। ICS এবং JellyBean ডিভাইস গুলোতে এই সমস্যার সমাধানের জন্য আপনি ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা অফ করে রাখতে পারেন। আর এই কাজটি করার জন্য আপনি আপনার ডিভাইসের সেটিংস্‌ মেনু থেকে Data Usage এ যেয়ে মেনু থেকে Restrict background data অপশনটি মার্ক করে দিলেই হবে।






Reduce your syncing

আমরা অনেকেই আমাদের হোম স্ক্রীনের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার জন্য নানা রকম উইজেট ব্যবহার করে থাকি,বিশেষ করে ওয়েদার উইজেট। এই উইজেট গুলো প্রতিনিয়ত আপডেট হয় আপনাকে সর্বশেষ আপডেটেড ইনফর্মেশনটি দেয়ার জন্য। accounts sync হওয়ার কারণেও ডাটা খরচ হয়ে থাকে। তাই প্রয়োজন না থাকলে আপনি এই Sync অফফ করে রাখতে পারেন। এক্ষেত্রে Settings > Data Usage > Menu > তে যেয়ে Auto-sync data অপশনটি আনচেক করে দিলেই হবে।



এটি Jelly Bean 4,ICS এর জন্য । তবে Ginger Bread ব্যবহারকরীরা একটু কষ্ট করে মিলিয়ে নিবেন ।




আজ নিয়ে এলাম আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে অতিরিক্ত ডাটা খরচ কমাবার টিপস।





প্রথমবারের মত এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হচ্ছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে। এশিয়ার চার শক্তিধর ক্রিকেট দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশের সঙ্গে বাছাই পর্ব খেলে যোগ দিয়েছে আরব আমিরাত। গত শুক্রবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামে অনুশীলনে আফগানিস্তান ও আরব আমিরাতের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হয় এ আসর।

২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে পর্দা উঠবে এশিয়া কাপের মূল পর্বর। এগারোতম এ আসরের সবগুলো ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে এ মাঠেই। ৬ মার্চ গ্র্যান্ড ফাইনাল দিয়ে শেষ হবে এবারের আসর। আসরের সব গুলো খেলাই সরাসরি সম্প্রচার করবে বেসরকারি স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল জিটিভি। খেলা সরাসরি সম্প্রচারের পাশাপাশি চ্যানেলটি প্রচার করবে ক্রিকেট নিয়ে একধিক অনুষ্ঠানের ।
প্রতিদিনের ম্যচ শুরুতে এবং মধ্য বিরতিতে জিটিভি সরাসরি সম্প্রচার করবে গ্রামীণফোন নিবেদিত ‘ক্রিকেট এক্সট্রা’ অনুষ্ঠান। ম্যাচ শেষে সরাসরি সম্প্রচারিত হবে গ্রামীণফোন নিবেদিত ‘ক্রিকেট ম্যানিয়া’ অনুষ্ঠান। রাত ১২টা ১০মিনিটে প্রচারিত হবে প্রতিদিনের ম্যচের গুরুত্বপূর্ণ অংশ নিয়ে গাজী টায়ার নিবেদিত ‘ক্রিকেট হাইলাইটস’ অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠান গুলো উপস্থাপনা করবেন সামিয়া আফরিন, মারিয়া নুর এবং শ্রাবন্য তৌহিদা।

জিটিভিতে সরাসরি এশিয়া কাপ টি-২০

kingeoot টা ডাউনলোড করে নিন।
এখন ইনস্টল করে একটু অপেক্ষা করুন। তারপর Root- লেখাটিতে ক্লিক করুন।


১ মিনিটের মধ্য এরকম দেখাবে।

যদি দেখায় তাহলে রুট হয়েছে। এবার New Kingroot টা ইনস্টল দিন। সাবধান Old টা আনইনস্টল করার দরকার নাই।
ওর উপরই New Kingroot টা ইনস্টল দিন।
ব্যাস কাজ শেষ।
কি হল তো রুট।
এবার রুট হয়েছে কিনা তা  root checker দিয়ে পরিক্ষা করুন।। 


kingroot দিয়ে এবার রুট করুন সকল এন্ড্রয়েড ফোন ১০০% হবেই।।


কেমন আসেন সবাই? আসা করি ভালো।
আপনিও জানেন আমিও জানি Clash Of
Clans এর কোনো হ্যাক নাই। আজ
আমি আপনাদের যেটা শিখাবো
সেটাও কোনো হ্যাক নয়।

এখানে আপনি বৈধ ভাবে ডলার
ইনকাম করবেন এবং তা জেমস কিনতে
ব্যয় করবেন।
আমিও এভাবেই আমার 5th Builder
কিনসি…কারন প্রথম এর
দিকে অনেক জেমস নস্ট করসিলাম
এই ট্রিকস টা স্পূর্ন কার্যকর . No jailbreak
and no Hack। বিশ্বাস না হলে ট্রাই করে
দেখেন
তাহলে শুরু করা যাক
১ম ধাপঃ প্রথম এই WHAFF Apps টা
নিচ থেকে ডাউনলোড করুন

ক্লিক করুন এখানে।।।




২য় ধাপঃ Apps টা রান করুন… উপরের
ডান পাশে LogIn আছে।সেখানে
ক্লিক করে আপনার FB Mail Password দিন
(যদি হ্যাক হওয়ার ভয় থাকে তাহলে
একটা আইডি খুলে
ট্রাই করেন। ইমেইল টা যেন ভালো
থাকে)
৩য় ধাপঃ Login হলে একটা code চাবে,
সেখানে এই Code টা দিতে পারেন
DI01248। তাহলে আপনার অ্যাকাউন্ট
টি অ্যাক্টিভ হবে। কোডটি দেওয়ার
জন্য আপনি .3$
পাবেন। আর অ্যাকাউন্ট খুলার জন্য .2$
পাবেন। অর্থাৎ আপনি মোট .5 $ ফ্রী
পাবেন।
৪র্থ ধাপঃ এবার আপনার ডলার ইনকাম
এর পালা। আপনি আপনার ফ্রেন্ড
ইনভাইট করেন আর .3 $ income করেন। ৩০
জন কে ইনভাইট করলে আপনি ১০$
পাবেন তাহলে payout করতে পাবেন।
একদম ইজি। আমি ৪ দিয়ে ১০ ডলার
ইনকাম
করেছি। কিভাবে ডলার দিয়ে জেমস
কিনবেন
১। পাশে অপশন এ গিয়ে পে আউট এ
ক্লিক করুন
২। ১০$ Google gift card এ ক্লিক করুন। তারপর
রিকুয়েস্ট চলে যাবে… ২-৩ ঘন্টা পর
আপনি গিফট কার্ড কোড পেয়ে
যাবেন। এটি Reward History তে গিয়ে
চেক করতে
পারবেন।
৩। code পেয়ে গেলে Play Store অন করে
Manu>”REDEEM”
৪। WHAFF Rewards এর কোড টি বসায় ওকে
ক্লিক করুন। ব্যাস আপনি পেয়ে যাবেন
আপনার কাঙ্ক্ষিত Gems..
আর জেমস কিনার জন্য COC এ ধুকে শপ এ
যেয়ে কিনতে
হবে।
সমস্যা হলে জানাবেন

Clash of Clans এর মাস্টার আনলিমিটেড জেম নিয়ে নিন একটি সফটওয়ার ব্যবহার করে।


Network Scope 2G, 3G, 4G
Battery Type & Performance Lithium-polymer 3500 mAh (non-removable)
Body & Weight -
Camera Factors (Back) BSI, autofocus, dual-LED flash, f2.0 aperture, 2nd gen. optical image stabilization (OIS),
manual focus (professional mode), ISO control, HDR, panorama

Camera Resolution (Back) 24 Megapixel
Camera Resolution (Front) 13 Megapixel (BSI, f2.2 aperture, face beauty, smart scene)
Chipset -
Colors Available Black
Display Resolution 6.0 inches, Quad HD 2560 x 1440 pixels (492 ppi)
Display Type Super AMOLED Touchscreen with Corning Gorilla Glass 4 protection
Graphic Processing Unit (GPU) PowerVR G6200
Memory Card Slot MicroSD, up to 128 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Octa-core, 2 GHz (64-bit) ARM Cortex-A53
RAM 3 GB
ROM 64 GB
Release Date December 2015
Sensors Accelerometer (3D), Gyroscope, Gravity, Linear Acceleration, Rotation Vector, Light. Proximity, Compass, Orientation
SIM Card Type Dual SIM (Micro SIM, dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0, USB-on-the-go (OTG)
Video Ultra HD (4K)
Wireless LAN Yes, WLAN hotspot, dual band
Special Features - Metal body
- Battery Saving Mode, Fast Charging
- Biological Fingerprint Recognition Sensor
- DTS sound, built-in Duo Speakers & HI-FI audio output with 24-Bit and 192 KHz audio
- Smart Gesture, Air Gesture
- Wireless display, OTA
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3/MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, NFC, OTA

Walton Primo ZX2...Price in Bangladesh: 35,990 Tk.


Network Scope 2G, 3G, 4G
Battery Type & Performance Lithium-polymer 3150 mAh
Body & Weight 155 x 76.4 x 7.4 millimeter, 153 grams
Camera Factors (Back) LED flash, autofocus, BSI, aperture f2.0, auto face recognition, face beauty, different settings and shooting modes

Camera Resolution (Back) 13 Megapixel (up to 65 MP with Ultra-Pixel mode
Camera Resolution (Front) 5 Megapixel, BSI, face beauty, smart scene, HD video (720p)
Chipset -
Colors Available Dark Blue, Pure White, Golden
Display Size & Resolution 5.5 inches, HD 720 x 1280 Pixels
Display Type Super AMOLED with Corning Gorilla Glass 3 protection
Graphics processing unit (GPU) Mali-T720
Memory Card Slot MicroSD, up to 64 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Octa-core, 1.3 GHz (64-bit)
RAM 2 GB
ROM 16 GB
Release Date January 2016
Sensors Accelerometer (3D), proximity, light, orientation, compass, hall
SIM Card Type Dual SIM (dual stand-by)
USB USB Type-C, USB-on-the-go (OTG)
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes, Wi-Fi hotspot
Special Features - Smart Gesture, DTS sound system, Wireless Display Sharing, HotKnot
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, OTA

Walton Primo NX3..Price in Bangladesh: 16,490 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-ion 1400 mAh
Body & Weight 123 x 64.5 x 10 millimeter, 145 grams
Camera Factors (Back) LED flash

Camera Resolution (Back) 2 Megapixel
Camera Resolution (Front) 0.3 Megapixel (VGA)
Colors Available Black, White, Blue
Display Size & Resolution 4.0 inches, WVGA 800 x 480 Pixels
Display Type Touchscreen
Graphics processing unit (GPU) Mali 400
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android KitKat v4.4.2
Processor Quad-core, 1.2 GHz
RAM 512 MB
ROM 4 GB
Release Date January 2016
Sensors Accelerometer
SIM Card Type Dual SIM (Mini SIM, dual stand-by, 3G support in both SIM)
USB MicroUSB v2.0
Video Recording HD (720p)
Wireless LAN Yes
Other Features - Bluetooth, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, OTA

Walton Primo D7..Price in Bangladesh: 3,690 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-polymer 2300 mAh
Stand-by: up to 10 days
Talk-time: up to 10 hours
Body & Weight 143 x 72.6 x 9.5 millimeter, 151 grams
Camera Factors (Back) Flash light, HDR, face beauty, panorama mode, voice shot, smile shot, multi angle view
Camera Resolution (Back) 8 Megapixel

Camera Resolution (Front) 5 Megapixel
Colors Available Black
Display Size & Resolution 5.0 inches, HD 1280 × 720 pixels (294 ppi)
Display Type IPS Touchscreen
Graphic Processing Unit (GPU) Mali 400 MP2
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-Core, 1.3 GHz
RAM 1 GB
ROM 8 GB
Release Date November 2015
Sensors G-sensor, accelerometer, light, proximity
SIM Card Type Dual SIM (Micro SIM, dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, OTA

Symphony H60..Price in Bangladesh: 7,990 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-polymer 3200 mAh
Stand-by: up to 740 hours
Talk-time: up to 14 hours
Body & Weight 142.5 x 70.9 x 8.4 millimeter, 155 grams
Camera Factors (Back) LED flash, up to 4x digital zoom

Camera Resolution (Back) 8 Megapixel
Camera Resolution (Front) 5 Megapixel
Colors Available Black
Display Size & Resolution 5.0 inches, HD 1280 × 720 pixels (294 ppi)
Display Type IPS Touchscreen
Graphic Processing Unit (GPU) Mali 400 MP2
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-Core, 1.3 GHz
RAM 1 GB
ROM 16 GB
Release Date November 2015
Sensors G-sensor, accelerometer, light, proximity
SIM Card Type Dual SIM (Micro + Regular SIM, dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, OTA

Symphony H120.Price in Bangladesh: 8,390 Tk.

আজ কাল বেশিরভাগ মানুষই  KM Player ব্যবহার করে থাকেন। কারন অনেক বড় থেকে বড় Regulation এর ভিডিও নিমিশেই চলে এই ভিডিও প্লেয়ারটি তে  !  তাই যারা KM Player এর প্রেমিক তাদের জন্য নিয়ে এলাম একদম নতুন Update ভার্সন। এই  KM Player এ রয়েছে নতুন স্কিন ...ও আলাদা স্টাইল এর সব  সেটিং !!!!




What's New
- Changed Interstitial Ads’ exposure location
- Added an advertisement on video view with related SDK updates
- Updated inquiry email to append device information
- Added Database field for each media
Updated: January 28, 2016
Size: 17M

download here...

KM player for Android..new version.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-ion 2500 mAh
Stand-by: up to 500 h
Talk-time: up to 14 h
Body & Weight 148 x 74 x 8.25 millimeter

Camera Factors (Back) Tri-LED rear flash, autofocus, up to 4x zoom
Camera Resolution (Back) 13 Megapixel
Camera Resolution (Front) 5 Megapixel, selfie flash
Colors Available Black/Grey
Display Resolution 5.3 inches, HD 720 × 1280 pixels
Display Type IPS Touchscreen
Graphic Processing Unit (GPU) Mali 400 MP2
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android Lollipop v5.0
Processor Quad-Core, 1.3 GHz
RAM 2 GB
ROM 16 GB
Release Date August 2015
Sensors Accelerometer, G-Sensor, proximity,
SIM Card Type Dual SIM (both regular SIM slots)
USB MicroUSB
Video Recording Yes
Wireless LAN Yes, Wi-Fi Hotspot
Special Features - Smart remote controller
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, OTA

Symphony Xplorer P6 (2GB RAM)..Price in Bangladesh: 11,190 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-polymer 4000 mAh
Stand-by: up to 15 days
Talk-time: up to 15 hours
Body & Weight 142.4 x 72 x 8.99 millimeter, 165 grams
Camera Factors (Back) Up to 4x digital zoom, LED flash, HDR, face beauty, panorama mode, smile shot, multi angle view
Camera Resolution (Back) 13 Megapixel

Camera Resolution (Front) 5 Megapixel
Colors Available Black
Display Size & Resolution 5.0 inches, HD 1280 × 720 pixels (294 ppi)
Display Type IPS Touchscreen
Graphic Processing Unit (GPU) Mali T720 MP2
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-Core, 1.3 GHz (64-bit)
RAM 2 GB
ROM 16 GB
Release Date January 2016
Sensors G-sensor, accelerometer, light, proximity
SIM Card Type Dual SIM (Micro SIM, dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0, USB-on-the-go (OTG)
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker

Symphony H175...Price in Bangladesh: 10,490 Tk.


Network Scope 2G, 3G, 4G
Battery Type & Performance Li-Ion 2600 mAh (non-removable)
Talk-time: up to 18 hours
Body & Weight 142.1 x 70.1 x 7 millimeter, 132 grams
Camera Factors (Back) 3456 x 4608 pixels, CMOS, auto-focus, LED flash, optical image stabilization (OIS), face detection, Auto HDR
Camera Resolution (Back) 16 Megapixel

Camera Resolution (Front) 5 Megapixel, dual video call, Auto HDR
Chipset Exynos 7420
Colors Available White Pearl, Black Sapphire, Gold Platinum, Green Emerald
Display Size & Resolution 5.1 inches, 1440 x 2560 pixels (577 ppi)
Display Type Super AMOLED Touchscreen, Corning Gorilla Glass 4 protection
Graphics processing unit (GPU) Mali-T760
Memory Card Slot No
Operating System Android Lollipop v5.0.2
Processor Octa-Core, 2,1 GHz, 1,5 GHz
RAM 3 GB
ROM 32 GB
Release Date April 2015
Sensors Accelerometer, gyro, proximity, compass, barometer, gesture, heart rate
SIM Card Type Single SIM (Nano-SIM)
USB MicroUSB v2.0 (MHL 3 TV-out), USB-on-the-go (OTG)
Video Recording UHD 4K (3840 x 2160 Pixel), dual video recording
Wireless LAN Dual band, WiFi Direct, WiFi hotspot
Special Features - Curved edge screen
- Corning Gorilla Glass 4 back panel
- Fingerprint sensor (PayPal certified)
- Samsung Pay (Visa, MasterCard certified)
- TouchWiz UI
- Wireless charging
- S-Voice, smart stay, smart pause, smart scroll, air gestures
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, NFC, Infrared

Samsung Galaxy S6 edge..Price in Bangladesh: 64,900 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-ion 2000 mAh
Talk-time: up to 10 h
Body & Weight 130.8 x 67.9 x 8.8 millimeter, 130 grams
Camera Factors (Back) 2592 x 1944 pixels, autofocus, LED flash, auto face recognition
Camera Resolution (Back) 5 Megapixel
Camera Resolution (Front) 2 Megapixel

Chipset Qualcomm Snapdragon 410
Colors Available White, Black, Gray
Display Size & Resolution 4.5 inches, 480 x 800 pixels (207 ppi)
Display Type TFT Touchscreen
Graphics Processing Unit (GPU) Adreno 306
Memory Card Slot MicroSD, up to 64 GB
Operating System Android KitKat v4.4.4
Processor Quad-core, 1.2 GHz
RAM 1 GB
ROM 8 GB
Release Date November 2014
Sensors Accelerometer, proximity
SIM Card Type Optional Dual SIM (Micro-SIM, dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0
Video Recording HD, 720p
Wireless LAN Yes, Wi-Fi direct, hotspot
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Java, HTML5, NFC

Samsung Galaxy Core Prime..


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-ion 2000 mAh
Body & Weight 143.3 x 72 x 8.9 millimeter, 136 grams
Camera Factors (Back) LED flash, autofocus, BSI
Camera Resolution (Back) 5 Megapixel
Camera Resolution (Front) 2 Megapixel

Colors Available Various
Display Size & Resolution 5 inches, HD 1080 x 720 Pixels
Display Type IPS + OGS Touchscreen with corning gorilla glass protection
Graphics processing unit (GPU) Mail 400
Memory Card Slot MicroSD, up to 128 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-core, 1.3 GHz
RAM 1 GB
ROM 16 GB
Release Date January 2016
Sensors Accelerometer, proximity, light, orientation, magnetic field (compass)
SIM Card Type Dual SIM (dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0, USB-on-the-go (OTG)
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes, Wi-Fi hotspot
Special Features - DTS sound system, smart gesture, double tap to wake
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker, OTA

Walton Primo GH5...Price in Bangladesh: 7,590 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-polymer 2500 mAh
Stand-by: up to 250 hours
Talk-time: up to 10 hours

Body & Weight 145 x 72 x 8.45 millimeter, 142 grams
Camera Factors (Back) Flash light, up to 4x zoom, HDR, panorama mode, face beauty, smile shot, multi angle view
Camera Resolution (Back) 8 Megapixel
Camera Resolution (Front) 2 Megapixel
Colors Available Black
Display Size & Resolution 5.0 inches, HD 1280 × 720 pixels (293 ppi)
Display Type IPS Touchscreen
Graphic Processing Unit (GPU) Mali 400 MP2
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-Core, 1.3 GHz
RAM 1 GB
ROM 8 GB
Release Date January 2016
Sensors G-sensor, accelerometer. proximity, light
SIM Card Type Dual SIM (Micro SIM, dual stand-by)
USB MicroUSB v2.0, USB-on-the-go (OTG)
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker

Symphony H58.Price in Bangladesh: 7,640 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Lithium-ion 3000 mAh
Stand-by: up to 700 hours
Talk-time: up to 20 hours

Body & Weight 137.53 x 69.38 x 9.75 millimeter, 143 grams
Camera Factors (Back) Flash light, autofocus, up to 4x zoom, HDR, face beauty
Camera Resolution (Back) 8 Megapixel
Camera Resolution (Front) 5 Megapixel
Colors Available Black/White
Display Size & Resolution 4.7 inches, qHD (236 ppi)
Display Type IPS Touchscreen
Graphic Processing Unit (GPU) Mali 400 MP2
Memory Card Slot MicroSD, up to 32 GB
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-Core, 1.3 GHz
RAM 1 GB
ROM 8 GB
Release Date January 2016
Sensors G-sensor, proximity, light
SIM Card Type Dual SIM (dual stand-by, Regular + Micro SIM)
USB MicroUSB v2.0
Video Recording Full HD (1080p)
Wireless LAN Yes
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, Loudspeaker

Symphony V85 .Price in Bangladesh: 6,990 Tk.


Network Scope 2G, 3G
Battery Type & Performance Li-Ion 1500 mAh
Talk-time: up to 10 h
Music play: up to 40 h
Body & Weight -
Camera Factors (Back) f/2.2 aparture
Camera Resolution (Back) 5 Megapixel
Camera Resolution (Front) 0.3 Megapixel (VGA)
Chipset -

Colors Available -
Display Size & Resolution 4.0 inches, -
Display Type Touchscreen
Graphics Processing Unit (GPU) Mali 400
Memory Card Slot -
Operating System Android Lollipop v5.1
Processor Quad-core, 1.2 GHz
RAM 1 GB
ROM 8 GB
Release Date February 2016
Sensors -
SIM Card Type Yes
USB MicroUSB v2.0
Video HD (720p)
Wireless LAN Yes
Special Features - Ultra Data Saving Mode
Other Features - Bluetooth, GPS, A-GPS, MP3, MP4, Radio, GPRS, Edge, Multitouch, HTML

Samsung Galaxy J1 NxtPrice in Bangladesh: 6,990 Tk.

এখন আপনি চাইলেই ২০০+ লাইক এর ফেইসবুক পেজ এর নাম সেকেন্ড এর মদ্ধে চেঞ্জ করতে পারবেন আর হ্যা এইটা অফিসিয়ালি ভাবেএখন আর কোনো usa এর প্রক্সি use করে নাম চেঞ্জ এর জন্য রিকোয়েস্ট করতে হবে না,আর wait করতে হবে না ১৫ দিন ! এখন
আপনি চাইলেই ২০০+ লাইকের ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন করতে পারবেন খুব সহজেই আর ২০০+ থেকে শুরু করে 10 লক্ষ লাইক এর ফেইসবুক পেজ এর নাম সেকেন্ড এর মধ্যেই চেঞ্জ করতে পারবেন,এখনি চেঞ্জ করে নিন আপনার ফেইসবুক পেজ এর নাম। যত বার ইচ্ছা চেঞ্জ করতে পারবেন :p ফেসবুক এর একটা সীমাবদ্ধতা ছিলো ২০০+ লাইকের ফেসবুক ফ্যন পেজের নাম পরিবর্তন করা যেতো না :p এখন ফেসবুক অফিশিয়াল ভাবেই ২০০+ লাইকের ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন করার ব্যবস্থা করে দিয়েছে

১। প্রথমে আপনি আপনার পেজ এর about এ ক্লিক করে Page info দেখুন

২। পেজ ইনফো এর নিচের দিকে “Name” এর পাশে Edit অপশন পাবেন. সেটায় ক্লিক করুন
৩।তারপর বক্সে নতুন নাম দিয়ে “Save Changes ” দিন… দেখুন আপনার পেজের নাম পরিবর্তন হয়ে গেছেপেজ টা 2/1 বার রিলোড মারেন দেখবেন আপনার পেজটির নাম পরিবর্তন হয়ে গেছে! এইভাবে আপনি ২০০ লাইক হওয়ার পর ও আপনার ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন করতে পারবেন খুব সহজেই !

প্রমাণ দেখুন+ভিডিও টিউটোরিয়াল

Change Your Facebook Page Name after 200 Likes Just 10 Seconds – 2015 Official [100% Working Tricks]

https://www.youtube.com/watch?v=yOmK-tF09Pk

ইচ্ছা মতো চেঞ্জ করে নিন আপনার 200+ লাইক এর ফেইসবুক পেজ


আশা করি সবাই ভাল আছেন। আপনাদের ভাল থাকার প্রত্যই নিয়েই আজ আমার টিউটোরিয়াল শুরু করতেছি। আমরা সবাই কেউ না কেউ ফেসবুক চালাই। এক কথায়, ফেসবুক ছাড়া আমাদের জীবন অচল। এখানে আছে অনেক খবরের সাথে বিভিন্ন টিপ্স, পরীক্ষার প্রস্তুতি ইত্যাদি
। আপনার আমার সখ আছে যে ফেসবুকে কিভাবে গ্রুপ তৈরি করে এখানে মেম্বার এড করা যায়। সবাই গ্রুপ তৈরি করতে জানলেও গ্রুপে মেম্বার না থাকার কারনে আপনার দেওয়া টিউনগুলি সবার কাছে যায় না। ফেসবুকে আপনার অনেক ফ্রেন্ড আছে কিন্তু সেগুলো এক এক করে এড করতে আপনার আমার অনেক সময় লাগবে। সব ফ্রেন্ডদের এক সাথে এড করার একটা জাভা স্ক্রিপ্ট আছে। এর দ্বারা আপনি সহজেই আপনার সব ফ্রেন্ডদের এড করতে পারবেন। চলুন শিখে নিই :-ধাপ -১:প্রথমে আপনার ফেসবুকএকাউন্টে লগইন করুন।


ধাপ -২:যে Group এ add করতে চান সেই Group টিতে যান (আমি আমার Group *ফুচকাবিডি তে গেলাম* এ গেলাম)।

ধাপ -৩:এবার কিবোর্ড এর (CTRL+SHIFT+K) চাপুন অথবা মাউসের ডান বাটনে ক্লিক করে “Inspect Element” এ ক্লিক করুন তারপর  “Console” ক্লিক করবেন, সবার নিচে নিচের কোডগুলি পেস্ট করুন। যদি পেস্ট না হয় তাহলে “allow pasting” লিখবেন। তাহলেই কাজ হবে। একটা উইনডো আসবে,  নিচের কোডগুলো পেস্ট (CTRL+V) করে Enter চাপুন।

এখন দেখবেন নিছের মত একটা উইনডো এসেছে, কতজন Friend add হচ্ছে তা সেখানে দেখাবে।
সাবধান, এই কাজটি বেশি করবেন না। কারন ফেসবুক আপনাকে ব্লক করতে পারে। ব্লক হলে এই স্ক্রিপ্ট আর কাজ করবেনা। তাই ব্লক সিগনাল দিলে স্টপ করে দিন।

ফ্রেন্ড এড হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।ব্যাস কাজ শেষ।আজ এই পর্যন্তই।


কোড গুলো
 এখান থেকে ডাউনলোড করুন।

ফেসবুকের সকল ফ্রেন্ডকে, গ্রুপে এক ক্লিকে এড করুন



বিচিত্র এ দেশ।
বিচিত্র আমাদের চারপাশের মানুষ।
আরও বিচিত্র তাদের পেশা।

পেশার মাঝে যেন প্রতারণাই সবচে’ প্রিয় আমাদের অনেক বড় একটি অংশের।


এখানে কেউ একজন অন্যকে প্রতারিত করে তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলার আগে নিজেই জড়িয়ে যায় অন্যের পেতে রাখা প্রতারণার কারেন্ট জালে। পদ্মা-মেঘনা-যমুনা’র নরম পললে জেগে ওঠা বাংলাদেশের নরম মাটির মতো এদেশের সাধারণ মানুষের মনও নরম, যেমন খুশি তেমন ছাঁচে ঢেলে সাজানো যায়, বলেই হয়তো কেউ তেমন একটা মাথাও ঘামান না সেসব নিয়ে।

নয়তো নিচের খবরটি হয়তো আরও বেশ কিছু সংখক ‘পঠিত’ ও ‘জানানো’ হতো। বাংলানিউজটোয়েন্টিফোরডটকম প্রকাশিত খবরটি বলছে ‘দেশেই এখন তৈরি হচ্ছে ক্যাসপারস্কি এন্টিভাইরাস, তবে তা নকল!’।টেক সমাধানের শুরু থেকেই আমরা বলে আসছি – ডিজিটাল বাংলাদেশ করলেই শুধু হবে না। ডিজিটাল জীবনের নিরাপত্তাও নিশ্চিত করতে হবে। আর সেজন্য চাই আমাদের জন্য, আমাদের উপযোগী এন্টিভাইরাস। তবে, আমরা চেয়েছিলাম নিজেদের মাথা খাটিয়ে কোনো একটি বাংলাদেশি কোম্পানি তা উদ্ভাবন করুক ও বাজারে আনুক, কিংবা সম্পূর্ণ সেটআপ নিয়ে দেশের মাটিতে আসুক নামীদামী কোম্পানিগুলো – নকল করে নয়।

খবরে প্রকাশ – পুলিশের হাতে আটককৃতরা সফট ফাইল রাইট করে নকল বক্সে ভুলভাল অ্যাক্টিভিশন কোডসহ তা বিক্রিও করছিল বেশ কিছুদিন ধরে। বলার অপেক্ষা রাখে না দেশে আদৌ ক্যাসপারস্কি’র গ্রাহকসেবা কেন্দ্র আছে কি না বা থাকলেও তা কোথায় এসব জানা না থাকায় অনেকেই প্রতারিত হলেও বলতে পারেননি কোথাও।উপরে বলা ‘আমাদের উপযোগী’ মানে গ্রামে গ্রামে না হোক, সারা দেশ মিলিয়ে হলেও অন্তত কয়েকটি গ্রাহকসেবা কেন্দ্র থাকুক, যেখানে গিয়ে আমরা সরাসরি কোম্পানির লোকের কাছ থেকে পণ্যটি কিনতে পারবো। কিংবা কোথাও কোনো সমস্যা হলে যে নম্বরে কল করে জানাবো তা দেখেই যেন আৎকে না উঠি ভেবে যে, ‘খাইছে! বিদেশী নম্বর? কল দিলেই তো কাটবে মিনিটে ২৫/৩০ টাকা!!’

তাই, এন্টিভাইরাস নিয়ে বিভিন্ন সময়ে আমাদের আলোচনা ও পর্যবেক্ষণের জেরে আমাদের এবারের অনুরোধ ভিনদেশী কোম্পানি ও সরকারের কাছে। দয়া করে মোবাইল কোম্পানিগুলোর মতো আপনাদের পণ্য ও সেবা পাওয়ার পদ্ধতি সহজ করুন, মানুষ কীভাবে বুঝবে কোনটা আসল-কোনটা নকল তা প্রচারের ব্যবস্থা করুন।

! বাংলাদেশেই তৈরি হয় নকল এন্টিভাইরাস!! সেলকাস।


স্পেনের বার্সেলোনায় ২২ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে চমক দিতে আসছে চীনের স্মার্টফোন নির্মাতা হুয়াওয়ে। এবারের মেলায় ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন পি৯ ও টুইনওয়ান ট্যাব বাজারে আনতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। বার্তা সংস্থা এএফপির এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বাজার গবেষণাপ্রতিষ্ঠান গার্টনারের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে স্মার্টফোনের বাজারে তৃতীয় অবস্থানে আছে হুয়াওয়ে। স্যামসাং ও অ্যাপল আছে এক ও দুই নম্বরে।
প্রযুক্তি-বিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটের গুঞ্জন উঠেছে, এবার পি৯ স্মার্টফোনটিকে সামান্য বাঁকা করে তৈরি করছে হুয়াওয়ে। ৫ দশমিক ২ ইঞ্চি মাপের ফোনটিতে চার জিবি র‍্যাম, ২ দশমিক ৩ গিগাহার্টজ কিরিন প্রসেসর থাকবে। অ্যান্ড্রয়েড মার্সম্যালো চালিত ফোনটির পেছনে দুটি ক্যামেরা থাকবে।
এ ছাড়া ট্যাবলেটের বাজার দখল করতে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমচালিত মেটবুক নামের টুইনওয়ান ট্যাব বাজারে আনতে পারে হুয়াওয়ে। এতে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমও সমর্থন করবে।
প্রযুক্তি-বিষয়ক ওয়েবসাইটগুলো নতুন পণ্য নিয়ে গুঞ্জন তুললেও হুয়াওয়ে ২১ ফেব্রুয়ারির আগে মুখ খুলছে না। কারণ বার্সেলোনায় অনুষ্ঠান শুরুর আগেই সংবাদ সম্মেলন করে চমকগুলো দিতে চায় চীনের এই প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠানটি।

চমক দিতে আসছে হুয়াওয়ে




অনেক সময় দেখা যায় আমাদের মেমোরি কার্ড বা পেনড্রাইভ গুলো আর লাইন পায়না নষ্ট হয়ে যায় আমরা সেগুলো আর ভালো করার চেষ্টা না করে সেগুলো ফালায় রাখি।

আজ আমি আপনাদের মাঝে যে software টি share করতে যাচ্ছি তার নাম হল Memory Card Repair এই software টি দিয়ে সেই নষ্ট মেমোরি কার্ড টি ভালো করতে সক্ষম এই software টি আমি নিজেও আমার ২টি নষ্ট মেমোরি কার্ড ভালো করেছি কাজ হ্যরছে তাই আপনাদের মাঝে share করলাম ভালো লাগলে এবং যদি মনে হয় কাজে লাগবে তো ডাউনলোড করে নিন mb আপনাদের সাদ্ধের মধ্যেই মাত্র 1.6mb আশা করি কাজে লাগবে এবং ভালো লাগবে।

ডাউনলোড করুন এখান থেকে।


software টি ইন্সটল করুন তারপর আপনার মেমোরি কার্ড টি আপনার পিসি তে প্রবেশ করান এখন software টি একাই open হবে আর যদি একা open না হয় তো run as administator দিয়ে open করুন

তারপর আপনার মেমোরি কার্ড এর ডিভাইস টি সিলেক্ট করুন তারপর NTFS সিলেক্ট করুন Quick format এ টিক চিন্ন দিন এবার format দিন বাস একটু সময় নিয়ে আপনার মেমোরি কার্ড টি format হয়ে যাবে এবং আপনার মেমোরি কার্ড টি ভালো হয়ে যাবে ইনশা আল্লাহ।
ডাউনলোড লিঙ্ক টিউমেন্ট বক্স এ দেয়া হলো।
ধন্যবাদ সবাই কে সবাই ভালো থাকবেন এবং আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে করে আরো ভালো কিছু আপনাদের মাঝে share করতে পারি।ভাল থাকুন সবাই আজ এ পর্যন্তই।




মেমোরি কার্ড টা নষ্ট হয়ে গেছে ফেলে দিতে চাচ্ছেন ?থামুন একটু এদিকে আসুন ছোট্ট একটি software 1.6mb নিয়ে যান ভালো হয়ে যেতে পারে আপনার মেমোরি টা