বিজ্ঞাপন অনেক ধরনের হতে পারে এবং অনেক বিজ্ঞাপন প্রদানকারী আছে যা প্রকাশকদের তাদের ব্লগে অর্থ উপার্জন করতে সহায়তা করে। কিন্তু, একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে দেখানো হয় যে বিজ্ঞাপন এর প্রামাণিকতা চেক করা খুব প্রয়োজন। একটি ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত বিজ্ঞাপন যাচাই ads.txt ফাইল দ্বারা অর্জন করা সম্ভব। একটি ads.txt ফাইল প্রকাশক এবং বিজ্ঞাপনদাতাকে প্রতারণা বা ভাইরাস থেকে রক্ষা করে। আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগে ads.txt ফাইল যোগ করা অপরিহার্য, তাই এখানে আমরা আলোচনা করছি কিভাবে আপনি সহজেই আপনার ব্লগস্পট ব্লগে Custom ads.txt ফাইল এড করতে পারেন। আপনার ব্লগার ব্লগ এ ads.txt ফাইল যোগ করার আগে, আসুন আমরা জানি কীভাবে ads.txt হয় এবং এটি আমাদের কীভাবে উপকার করবে।

কিভাবে ব্লগারে Custom Ads.Txt File এড করবেন ?

আপনি আমার ব্লগের এই পোস্টটি দেখছেন কারণ, আপনি আপনার ব্লগার ব্লগ মুছে ফেলতে চান অথবা আপনি জানতে চান ব্লগারের ব্লগটি কিভাবে ব্লগার ব্লগ পার্মানেন্টলি ডিলিট করতে হয়। ব্লগার হছে ব্লগিংয়ের জন্য সর্বোত্তম cms প্ল্যাটফর্মের মধ্যে একটি। যেমনটি আপনি ব্যান্ডউইথ এবং হোস্টিং চার্জের বিষয়ে চিন্তা ছাড়াই ১০০ টি ব্লগ তৈরি করতে পারেন, আর এটা কোন রকম হোস্টিং খরচ ছাড়াই Google থেকে তৈরি করা হয়। আপনার ব্লগটি মুছে ফেলার কিছু বিশেষ কারণ থাকতে পারে, হতে পারে যে আপনি অন্য cms এ স্থানান্তর করছেন বা আপনি কোন কারণ বশত ব্লগটি চালাতে চাচ্ছেন না। কারণ যাই হোক না কেন, এটি আপনার উপর নির্ভর করে। তাই আজ এই পোস্টে, আপনি কিভাবে ব্লগার ব্লগ পার্মানেন্টলি ডিলিট করবেন তা এখানে শিখবেন।

কিভাবে ব্লগার ব্লগ পার্মানেন্টলি ডিলিট করবেন ?

সার্চ ইঞ্জিনগুলির জন্য আপনার ব্লগটি অপ্টিমাইজ করা বিশেষত নতুনদের জন্য খুব কঠিন কাজ বলে মনে হয়। কিন্তু কিছু নিয়ম মেনে এবং কিছু বুদ্ধি খাটিয়ে আমরা খুব সহজেই সার্চ ইঞ্জিনের জন্য আমাদের ব্লগের seo করতে পারি ডিফল্টরূপে,তাছাড়া আমরা এই কাজ গুলোও করতে পারি set custom redirects, set custom page not found, submit sitemap to google এবং আমাদের ব্লগের পেজ গুলো সার্চ ইঞ্জিনে রেজাল্ট দেখানোর জন্য যখন আমরা আমাদের ব্লগে একটি পোস্ট প্রকাশ করি, তখন ডিফল্ট ভাবে ব্লগার ব্লগারের শিরোনামটি প্রথম এবং পোস্ট শিরোনামটি দেখায় পরে, কিন্তু এটি সার্চ ইঞ্জিনের জন্য ভালো নয় কারণ এটি আপনার সার্চ টাইটেলটি জটিল এবং বিভ্রান্তিকর করে তুলবে।

কিভাবে ব্লগ টাইটেলের আগে পোস্ট টাইটেল শো করবেন আপনার ব্লগার ব্লগে

আপনি কি আপনার ব্লগ নিয়মিত ব্যাকআপ করেন বা আপনার ব্লগের কোনও পরিবর্তন করার আগে ব্যাকআপ করেন ? যদি না হয় তাহলে কিন্তু আপনি একটি বড় বিপদের মধ্যে আছেন। কখন বা কোন কারনে Google যদি আপনার ব্লগটিকে স্প্যাম হিসাবে চিহ্নিত করে এবং আপনার ব্লগটি ডিলিট করে দেয় তাহলে কি করবেন ?। আপনার সমস্ত কঠোর পরিশ্রম তখন অকার্যকর হয়ে যাবে এবং আপনি কিছুই এর সমাধান করতে পারবেন না বরং বিষণ্ণ হবেন।

কিভাবে ব্লগার ব্লগের টেম্পলেট এবং সব গুলো পোস্ট ব্যাকআপ নিবেন খুব সহজে

ব্লগ পোস্টের ইমেজ গুলো আমাদের ব্লগে পাঠকদের আকৃষ্ট করার একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং ভিজ্যুয়াল ইমেজগুলির মাধ্যমে সহজেই আমাদের বিষয়বস্তুগুলি বোঝার জন্য ছবিগুলিকে অন্যের থেকে আলাদা করার জন্য চিত্র অপটিমাইজেশন অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। আমাদের ব্লগ লেআউট অনুসারে ছবিগুলিকে পুনরায় আকার দেওয়া, যাতে তারা আমাদের ব্লগে পোস্ট এরিয়া নস্ট না করে। এই আকারের টাস্কটি খুব কঠিন হয়ে পড়েছে যখন আমরা শত শত বা হাজারো পোস্ট প্রকাশ করছি এবং আমরা সব পোস্ট ইমেজের আকার পরিবর্তন করতে চাই। ব্লগার আমাদের ব্লগের পোস্টগুলিতে ইমেজ গুলিকে পুনরায় আকার দেওয়ার জন্য ডিফল্ট মৌলিক সেটিংস সরবরাহ করে কিন্তু সীমিত মাত্রা পর্যন্ত।  আমরা কেবল চারটি সাইজের মধ্যে ইমেজ গুলি পুনরায় আকার দিতে পারি: ছোট, মাঝারি, বড় এবং অতিরিক্ত-বড়।

কিভাবে ব্লগ পোস্টের ইমেজ গুলো অটোমেটিকালি রিসাইজ করবেন ?



এন্ড্রয়েড টিপস এন্ড ট্রিক্স এ আজকের বিষয়
আপনার সখের এন্ড্রয়েড ফোনটি Brick হলে কি করবেন ?  তাহলে আসুন আমরা মনোযোগ দিয়ে নিচের অধ্যয়ন গুলি অনুসরণ করি।


১) Brick কি?
.
→যদি কোন কারনে আপনার ফোন on না
হয় অথ্যাৎ
আপনার সেটের লগু পর্যন্ত এসেয় থেমে যায়,
তখন তাকে Brick বলে।

আপনার সখের এন্ড্রয়েড ফোনটি Brick হলে কি করবেন ?

আমরা যারা কম্পিউটার ব্যবহার করি সচারাচর কিছু ছোট সমস্যায় ভুগি,আর যদি সে সমস্যা গুলি নিজেরাই সমাধান করে নিতে পারি তাহলে ভোগান্তি কম হয়।
আসুন জেনে নিন কম্পিউটাররের কিছু সমস্যা ও সমাধান।

জেনে নিন কম্পিউটাররের কিছু সমস্যা ও সমাধান



ইন্টারনেটের ইতিহাস শুরু হয়, ইলেকট্রনিক কম্পিউটারের অগ্রগতির সাথে সাথে ১৯৫০ সালে। ইন্টারনেট সম্পর্কে জনসাধারণ প্রথম ধারণা প্রবর্তিত হয়েছিল, যখন কম্পিউটার বিজ্ঞান অধ্যাপক লিওনার্ড ক্রাইনরক তার গবেষণাগার ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলেস (ইউসিএলএ) থেকে অর্পানেটের মাধ্যমে একটি বার্তা স্ট্যানফোর্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এসআরআই) তে পাঠান।

ইন্টারনেটের ইতিহাস এবং আমাদের অগ্রগতি



(১) সর্বোচ্চ ৬০০০ গ্রুপের মেম্বার হতে পারবেন।

(২) সর্বোচ্চ ৫০০০ ফ্রেন্ড অ্যাড করতে পারবেন।

(৩) সর্বোচ্চ ৫০০০ পেজ লাইক করতে পারবেন।

(৪) একটি ছবিতে সর্বোচ্চ ৫০ জন ব্যক্তি বা পেজকে ট্যাগ করতে পারবেন।

(৫) সর্বোচ্চ ১৫০ জনকে নিয়ে চ্যাট গ্রুপ তৈরী করতে পারবেন।

ফেসবুক নিয়ে কিছু বিশেষ তথ্য, ফেসবুক টিপস।

আপনি কি সর্বোচ্চ পেইডকারি সেরা URL shortener থেকে টাকা উপার্জন করতে চাচ্ছেন ?


যদি হ্যাঁ হয়, তাহলে আপনি ঠিক জায়গায় আছেন।

আমি ব্লগিং সম্পর্কে অনেক কিছু শেয়ার করেছি, কিন্তু এখন পর্যন্ত আমি URL shortener থেকে অর্থ উপার্জন সম্পর্কিত কোনও নিবন্ধ শেয়ার করে নি।

সর্বোচ্চ পেইডকারি সেরা URL shortener অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করুন

 গুগল অ্যাডসেন্স কোন সন্দেহ নেই বিশ্বব্যাপী শীর্ষ বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক হিসেবে ডিজাইন করা হয়েছে, যাতে ব্লগার বা সাইটের মালিকরা তাদের ব্লগে টাকা রোজগার করে আর তাদের ব্লগে বিজ্ঞাপনদাতারা তাদের ব্লগে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে । পেমেন্ট আবেদন জমা দেওয়ার জন্য আপনাকে আপনার ঠিকানা যাচাই এবং পরিবর্তন করতে পারবেন যা নতুনদের জন্য অজানা।

কিভাবে খুব সহজে আপনার গুগল অ্যাডসেন্স ঠিকানা পরিবর্তন করবেন

হ্যাকার হচ্ছেন সেই ব্যক্তি যিনি
নিরাপত্তা /অনিরাপত্তার সাথে জড়িত এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থার দুর্বল দিক খুঁজে বের করায় বিশেষভাবে দক্ষ অথবা অন্য কম্পিউটার ব্যবস্থায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করতে সক্ষম বা এর সম্পর্কে গভীর জ্ঞানের অধিকারী। সাধারনভাবে কালো-টুপি হ্যাকার। এছাড়া আরো নৈতিক হ্যাকার রয়েছেন (যারা সাধারনভাবে সাদা টুপি হ্যাকার নামে পরিচিত  white  hat hackers ) এবং নৈতিকতা সম্পর্কে অপরিষ্কার হ্যাকার আছেন যাদের ধুসর টুপি হ্যাকার বলে। এদের মধ্যে পার্থক্য করার জন্য প্রায়শ ক্র্যাকার শব্দটি ব্যবহার করা হয়, যা কম্পিউটার নিরাপত্তা হ্যাকার থেকে একাডেমিক বিষয়ের হ্যাকার থেকে আলাদা করার জন্য ব্যবহার করা হয় অথবা অসাধু হ্যাকার ( কালো টুপি হ্যাকার  black hat hackers ) থেকে নৈতিক হ্যাকারের ( সাদা টুপি হ্যাকার  white hat hackers  ) পার্থক্য বুঝাতে ব্যবহৃত হয়। আর এসব সাদা টুপি হ্যাকার, ধুসর টুপি হ্যাকার এবং
কালো টুপি হ্যাকার থেকেই গড়ে উঠে বিখ্যাত হ্যাকাররা।

হ্যাকার কারা ? দুর্ধর্ষ কয়েকজন হ্যাকার পরিচিতি



কম্পিউটার ভাইরাস হল এক ধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা ব্যবহারকারীর অনুমতি বা ধারণা ছাড়াই নিজে নিজেই কপি হতে পারে। মেটামর্ফিক ভাইরাসের মত তারা প্রকৃত ভাইরাসটি কপিগুলোকে পরিবর্তিত করতে পারে অথবা কপিগুলো নিজেরাই পরিবর্তিত হতে পারে। একটি ভাইরাস এক কম্পিউটার থেকে অপর কম্পিউটারে যেতে পারে কেবলমাত্র যখন আক্রান্ত কম্পিউটারকে স্বাভাবিক কম্পিউটারটির কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। যেমন: কোন ব্যবহারকারী ভাইরাসটিকে একটি নেট ওয়ার্কের মাধ্যমে পাঠাতে পারে বা কোন বহনযোগ্য মাধ্যম যথা ফ্লপি ডিস্ক, সিডি, ইউএসবি ড্রাইভ বা ইণ্টারনেটের মাধ্যমে ছড়াতে পারে। এছাড়াও ভাইরাসসমূহ কোন নেট ওয়ার্ক ফাইল সিস্টেমকে আক্রান্ত করতে পারে, যার ফলে অন্যান্য কম্পিউটার যা ঐ সিস্টেমটি ব্যবহার করে সেগুলো আক্রান্ত হতে পারে। ভাইরাসকে কখনো কম্পিউটার ওয়ার্ম ও ট্রোজান হর্সেস এর সাথে মিলিয়ে ফেলা হয়। ট্রোজান হর্স হল একটি ফাইল যা এক্সিকিউটেড হবার আগ পর্যন্ত ক্ষতিহীন থাকে।

কম্পিউটার ভাইরাস কি? কিভাবে আক্রমণ করে? এবং এর প্রতিকার



কিভাবে ব্লগারে রাইট ক্লিক কপি পেস্ট ফাংশন ডিজেবল করবেন ? 


- আপনি অনেক ব্লগার ব্লগে  রাইট ক্লিক কপি পেস্ট ফাংশন ডিজেবল দেখেছেন। কারণ, বেশিরভাগ জেনুইন ব্লগার যারা তাদের ব্লগের জন্য অনেক কাজ করেন এবং তাদের ব্লগের জন্য লেখা ইউনিক আর্টিকেল গুলো নতুন কপি পেস্ট ব্লগাররা চুরি করে এর কারনে তারা অনেক সমস্যার মুখোমুখি হয়, নতুন কপি পেস্ট ব্লগার যারা শুধুমাত্র ব্লগে সত্যিকারের প্রচেষ্টা ছাড়া অর্থ উপার্জন করার লক্ষ্যে প্রবেশ করছে এবং ইউনিক আর্টিকেল আর বিষয়গুলির মূল্য না বোঝেই কপি পেস্ট করেন যা অবাঞ্ছনীয় ।

কিভাবে আপনার ব্লগারে রাইট ক্লিক কপি পেস্ট ফাংশন ডিজেবল করবেন ?